ঢাকা, সোমবার,২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

অবকাশ

রক্ত দিয়ে কেনা যে স্বাধীনতা

মুহাম্মদ আল-আমিন

২৫ মার্চ ২০১৮,রবিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা নানার নাতি, আমার নানা তৎকালীন ইপিআরের সদস্য ছিলেন এবং কর্মস্থল থেকে সরাসরি মুক্তির সংগ্রামে অংশগ্রহণ করে মুক্তির শেষ দিন পর্যন্ত ময়দানে অবস্থান করেছিলেন। যার ফলে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান হিসেবে মুক্তিযোদ্ধা খেতাবে ভূষিত হন। আজ নানা বেঁচে নেই, নানার জন্য পরম করুণাময়ের কাছে জান্নাত কামনা করছি।
আমার নানী ১৯৭১-এর উত্তাল দিনগুলোর কথা বলতে গিয়ে প্রায়ই বলেন, আমরা যখনই বড় কোনো আওয়াজ শুনতাম, তখনি ভাবতাম আজ আর তোমার নানা ফিরে আসবে না। তখনি আমি অজুু করে জায়নামাজে বসে আল্লাহর দরবারে কায়মনোবাক্যে দোয়া করতে থাকতাম। এভাবে আল্লাহ আমাদের পার করেছেন সংগ্রামের কঠিন দিনগুলো থেকে। এভাবে বাংলার অসংখ্য দাদী-নানী মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আল্লাহর দরবারে দোয়া করেছিলেন।
নানাকে যখনি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে জিজ্ঞেস করতাম এবং ৭১ সালে কাদের কী ভূমিকা দেখেছিলেন? নানা হেসে বলতেনÑ অমুক অমুক এদেরকে রণাঙ্গনের আশপাশে দেখিনি কিন্তু আজ যখন তারা বিভিন্ন পদে বসে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা হাতিয়ে নিচ্ছে তখন বড়ই কষ্ট লাগে।
আমার এলাকার আরেকজন মুক্তিযোদ্ধা যিনি ৭১ সালে সেনাবাহিনীর সদস্য হিসেবে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন, তিনিও প্রায়ই রাগে-ক্ষোভে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে বলেন, এত এত মুক্তিযোদ্ধা ৭১ সালে কোথায় ছিল?
যাক সেদিকে আর যাচ্ছি না, এখন বলছি, স্বাধীনতার এত বছর পরও অনেক অর্জনের পাশাপাশি কিছু অসম্পূর্ণতা রয়েছে যা অর্জনটাকে ম্লান করে দিচ্ছে। আমাদের পাশাপাশি সময়ে স্বাধীনতা অর্জন করে বেশ কিছু দেশ উন্নত দেশের তালিকায় রয়েছে। আমরা সেখান থেকে বহু দূরে।
যে দিকগুলোর প্রতি আমাদের শাসকগোষ্ঠীর অবশ্যই তীক্ষè নজর দিতে হবে তা হলোÑ গণতন্ত্রের সংজ্ঞানুযায়ী গণতান্ত্রিক একটা দেশ গড়ে তোলা, স্বাধীন পররাষ্ট্রনীতি অনুসরণ করা, আইনের শাসন যথাযথ কার্যকর করা। শিক্ষাব্যবস্থা হবে আধুনিক বিজ্ঞান ও নৈতিকতা সংবলিত। সব ক্ষেত্রে রাষ্ট্রের সব নাগরিকের সাংবিধানিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতকরণ। দুর্নীতির অক্টোপাস থেকে জাতিকে পরিত্রাণ দেয়া।
পরিশেষে আজকের ৪৭তম স্বাধীনতা দিবসে, আমাদের প্রার্থনা, আমরা যেন শোষণমুক্ত একটা সমাজ গড়তে পারি, যেখানে থাকবে না বৈষম্য ও হানাহানির প্রতিচ্ছবি। থাকবে শুধু মায়ার বন্ধন ও শান্তির সুবাতাস।
চাটখিল, নোয়াখালী।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫