ঢাকা, সোমবার,১৮ নভেম্বর ২০১৯

অপরাধ

তিনি ৪ ডিগ্রিওয়ালা ডাক্তার!

নিজস্ব প্রতিবেদক

০২ এপ্রিল ২০১৮,সোমবার, ১৯:০১


প্রিন্ট
তিনি ৪ ডিগ্রিওয়ালা ডাক্তার!

তিনি ৪ ডিগ্রিওয়ালা ডাক্তার!

ওয়ালী উর রেজা। পেশায় একজন চিকিৎসক। নামের পাশে একটি নয়, দু'টি নয় চারটি ডিগ্রি রয়েছে। তিনি মেডিসিন ও শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ। প্রেসক্রিপসনে লেখা তিনি সহকারী অধ্যাপক। রাজধানীর রামপুরায় দি যশোর মেডিসিন কর্নার নামে একটি ফার্মেসিতে বসেন নিয়মিত। নিয়ম করে প্রতিদিন সকালে ও রাতে রোগী দেখেন। সপ্তাহে এক দিন ঢাকার বাইরে গিয়েও রোগী দেখেন তিনি। তার নামের পাশে লেখা রয়েছে এমবিবিএস (ঢাকা), বিসিএস (স্বাস্থ্য), এম.ডি (শিশু) ও এফসিপিএস মেডিসিন। নামের পাশে এভাবেই ডিগ্রি লাগিয়েছেন তিনি। আসলে তিনি শুধুই এইচএসসি পাস।

দীর্ঘ দিন ধরে চিকিৎসক সেজে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন তিনি। অবশেষে ধরা পড়েন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে। গত রোববার রাতে রাজধানীর রামপুরার রামপুরা পূর্ব হাজীপাড়ায় যশোর মেডিসিন কর্ণারে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে র‌্যাব। পরবর্তীতে র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত ওই ভুয়া চিকিৎসককে ২ বছরের কারাদণ্ড দেন। এছাড়াও অভিযানে বিক্রয় নিষিদ্ধ ওষুধ বিক্রির অপরাধে দুই দোকান মালিককে ৫০ ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত।


র‌্যাব জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাত ১১টার দিকে রামপুরার ওই এলাকায় অভিযানে নামে র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় যশোর মেডিসিন কর্নারে গিয়ে দেখা যায় চিকিৎসক ওয়ালী উর রেজা রোগীর সেবা দিচ্ছেন। যার নামের সঙ্গে এমবিবিএস, এফসিপিএস মেডিসিন, সহকারী অধ্যাপক লেখা রয়েছে। বাইরে রোগীর সংখ্যাও কম নয়। কিন্তু ভ্রাম্যমাণ আদালতের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে, কথিত ডা.ওয়ালী উর রেজা শুধুমাত্র এইচএসসি পাশ করেই ডাক্তার বনে গেছেন। দীর্ঘ দিন ধরে এই দোকানে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন তিনি। ভুয়া এই চিকিৎসক প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বেলা দেড়টা এবং রাত সাড়ে ৮টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত রোগী দেখেন। এছাড়া সপ্তাহে এ কদিন কুষ্টিয়াতেও রোগী দেখতে যান তিনি।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, ডাক্তার না হয়েও তিনি ডাক্তার সেজে রোগীদের সেবা দিয়েছেন। তিনি সেটা স্বীকারও করেছেন। আইন অনুযায়ী তাকে দু বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এ

ছাড়া বিক্রয় নিষিদ্ধ ওষুধ রাখায় দুটি ওষুধ বিক্রয় কেন্দ্রের মালিককে ৫০ ও ২৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় এমন অভিযান চলমান থাকবে বলে জানান ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫