ঢাকা, রবিবার,১৬ জুন ২০১৯

দেশ

জীবনের নিরাপত্তা চায় শিক্ষক দম্পতি

বড়াইগ্রাম (নাটোর) সংবাদদাতা

০৭ এপ্রিল ২০১৮,শনিবার, ১৭:৪৫


প্রিন্ট
জীবনের নিরাপত্তা চায় শিক্ষক দম্পতি

জীবনের নিরাপত্তা চায় শিক্ষক দম্পতি

ক্রমাগত ফসল বিনষ্ট ও প্রাণনাশের হুমকির কারণে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বড়াইগ্রামের চরনটাবাড়িয়া গ্রামের শিক্ষক দম্পতি ও তাদের সন্তানেরা। একই সাথে মিথ্যা মামলায় আসামী বানিয়ে চাকুরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত করায় অর্থাভাবে ছেলেমেয়ের শিক্ষাজীবন ধ্বংস হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

এ অবস্থায় শনিবার আহম্মেদপুরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে নির্যাতনকারী আয়নুল হককে আটক, জীবনের নিরাপত্তা ও চাকুরীতে পুনর্বহালের দাবী জানিয়েছেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে নির্যাতিত দম্পতি নটাবাড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জয়নুল আবেদীন, তার স্ত্রী ব্র্যাক স্কুলের শিক্ষিকা রওশনআরা ও সমাজসেবক আনোয়ার হোসেন টিপু উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে জানা যায়, গত ২৯ মার্চ চরনটাবাড়িয়া গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে স্কুল শিক্ষক জয়নুল আবেদীনের এক বিঘা জমির শুকাতে দেয়া রসুন ও এর আগে তিন বিঘা জমির গাছে থাকা কলা তার সৎ ভাই আয়নুল হক লোকজনসহ হাসুয়া দিয়ে কেটে নষ্ট করে। এ ব্যাপারে মামলা করায় উল্টো প্রাণনাশের হুমকি দেয়াসহ প্রায়ই বাড়ির আশেপাশে সশস্ত্র অবস্থায় ঘোরাঘুরি করে।

প্রাণনাশের আশঙ্কায় তার বিশ্ববিদ্যালয় পডুয়া একমাত্র ছেলে বাড়িতে আসতে পারছে না। এছাড়াও আয়নুল মিথ্যা মামলায় জয়নুল আবেদীনকে আসামী করায় তিনি চাকুরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত রয়েছেন। নিরাত্তাপহীনতাসহ একের পর এক ফসলহানী ও বরখাস্ত থাকায় অর্থাভাবে চরম মানবেতর জীবন যাপন করছেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে কান্নাজড়িত কণ্ঠে তারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে জীবনের নিরাপত্তা বিধান, সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক চাকুরীতে পুনর্বহাল ও দোষী আয়নুল হকসহ তার সহযোগীদের আটকের দাবী জানান।

এসব ব্যাপারে কথা বলার জন্য অভিযুক্ত আয়নুল হকের মোবাইলে কল দিলে তিনি এ বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হননি। বড়াইগ্রাম থানার ওসি শাহরিয়ার খান জানান, ফসলহানীসহ অন্যান্য বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫