ঢাকা, সোমবার,২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

অপরাধ

কুমিল্লায় কলেজছাত্র হত্যা রহস্য উদঘাটন

প্রধান আসামি গ্রেফতার

কুমিল্লা ও চান্দিনা সংবাদদাতা

০৭ এপ্রিল ২০১৮,শনিবার, ২৩:১৬


প্রিন্ট
গ্রেফতারকৃত সোহাগ উদ্দিন রানা

গ্রেফতারকৃত সোহাগ উদ্দিন রানা

কুমিল্লা নগরীর রেসকোর্স এলাকায় কলেজছাত্র সাগর দত্তকে গলা কেটে হত্যা করার প্রধান আসামি সোহাগ উদ্দিন রানাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কুমিল্লা জেলা ডিবির এসআই শাহ কামাল আকন্দ পিপিএমের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘাতক রানাকে গত শুক্রবার রাতে ঢাকার কমলাপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। রানা জেলার মনোহরগঞ্জ উপজেলার বাতাবাড়িয়া গ্রামের সেলিম জাহাঙ্গীরের ছেলে। হত্যায় জড়িত থাকার বিষয়ে সে গতকাল বিকেলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে।
গত বুধবার ভোরে কুমিল্লা নগরীর রেসকোর্স এলাকায় চিন্ময় ভৌমিকের মালিকানাধীন বি এইচ ভূঁইয়া হাউজ নামে তিনতলা ভবনের নিচতলার একটি ছাত্রাবাসে সাগর দত্তকে গলা কেটে হত্যা ও সজীব নামে একছাত্রকে গুলি করে আহত করে ঘাতকেরা।
গতকাল শনিবার দুপুর ১২টায় কুমিল্লার পুলিশ সুপার কার্যালয়ে প্রেসব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: আলমগীর হোসেন জানান, কয়েক মাস আগে রানা স্টুডেন্ট ভিসায় মালয়েশিয়ায় গিয়ে একটি পেট্রল পাম্পে চাকরি নেয়। কিন্তু ওখানে সে অবৈধ হয়ে পড়লে পুলিশ তাকে আটক করে জেলে পাঠায়। দেড়মাস জেল খেটে বের হয়ে মালয়েশিয়া থেকেই সে দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার জন্য বাংলাদেশী একজন দালাল ধরে।
এরপর টাকা জোগাড় করতে সে তার বাবার মাধ্যমে নিজ এলাকার চারজনকে মালয়েশিয়া নেয়ার কথা বলে ৮ লাখ টাকা নেয়। ওই টাকা থেকে সে দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার জন্য দালালকে ছয় লাখ টাকা দিয়ে প্রতারিত হয়। এ দিকে এলাকার ওই চারজনকে মালয়েশিয়া পাঠাতে না পারায় তার বাবা চাপে পড়ে জমি বিক্রি করে তাদের টাকা পরিশোধ করেন। এরই মধ্যে রানা তার বাবা-মায়ের অজান্তে দেশে ফিরে এলেও বাড়ি না গিয়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়াতে থাকে।
এরপর পরিকল্পনা করে শিক্ষার্থীদের পণবন্দী করে তাদের পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায় করার। এ জন্য সে সহযোগী হিসেবে নেয় নাছির উদ্দিনকে। আর ৭৫ হাজার টাকায় কিনে অবৈধ পিস্তল। দু’জন পরিকল্পনা করে টার্গেট নেয় রেসকোর্স এলাকার চিন্ময় ভৌমিকের বি এইচ ভূঁইয়া হাউজের ছাত্রদের একটি মেসকে। পরিকল্পনা অনুযায়ী ২ এপ্রিল তারা ওই মেসে গিয়ে ভাড়া নেয়ার কথা বলে। এতে ছাত্ররা সম্মত হলে সে ওই মেসের ছাত্র সজীবের কাছে ভাড়া বাবদ অগ্রিম এক হাজার টাকা দেয়। এরপর খোঁজ নিতে থাকে কোন ছাত্রের পরিবার কতটা সচ্ছল। এরপর সাগর ও সজীবকে টার্গেট করে তাদের পরিকল্পনা সাজায়।
মেসে উঠে তারা ছাত্র সাগর ও সজীবকে বিভিন্ন কৌশলে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করে এবং অস্ত্রের মুখে তাদের বাবার কাছ থেকে টাকা আদায়ের চেষ্টা করে। এ সময় তাদের (সাগর-সজীব) রশি দিয়ে বেঁধে নির্যাতন করে। কিন্তু সারা রাত নির্যাতন করেও টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে ভয়ে রানা ও নাসির দুই ছাত্রকে মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয় এবং রানা পিস্তল দিয়ে সজীবের বুকে গুলি করে। এরপর সাগরকে গুলি করার সময় ট্রিগার আটকে গেলে ধারালো ছুরি দিয়ে সাগরকে গলা কেটে হত্যা করে তারা পালিয়ে যায়। ঘাতকেরা পালিয়ে গেলে বুকে গুলি নিয়ে আশপাশের লোকজনকে জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করে আহত সজীব। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, ছুরি, রশি, ট্যাপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করে।
এ বিষয়ে এসআই শাহ কামাল আকন্দ জানান, রানার সাথে তিন বছর আগে থেকে এক মেয়ের সম্পর্ক আছে। ঘটনাস্থলে ঘাতক রানার ফেলে যাওয়া মোবাইল ফোনের সূত্রে ধরে ওই মেয়েকে ডিবি হেফাজতে আনা হয় এবং একপর্যায়ে ওই মেয়ের মোবাইল ফোনে রানা কল করলে তার মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে ঢাকার কমলাপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়।
অপর ঘাতককে ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে। এ ঘটনায় নিহত সাগর দত্তের বাবা শংকর দত্ত বাদি হয়ে দুইজনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা করেছেন। বিকেলে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দেয়ার পর ঘাতক রানাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।
প্রেসব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেনÑ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাখাওয়াত হোসেন ও তানভীর সালেহীন ইমন, ডিবির পরিদর্শক নাছির উদ্দিন মৃধা, কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আবু ছালাম মিয়াসহ জেলা, ডিবি ও থানা পুলিশের কর্মকর্তারা।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫