ঢাকা, সোমবার,০৯ ডিসেম্বর ২০১৯

দেশ

শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

০৯ এপ্রিল ২০১৮,সোমবার, ১৮:১৫ | আপডেট: ০৯ এপ্রিল ২০১৮,সোমবার, ১৯:৪৩


প্রিন্ট
শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন একই বিভাগের দুই ছাত্রী। ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও কাজী নজরুল ইসলাম হলের প্রাধ্যক্ষ জি এম আজমল আলী কাওসারের বিরুদ্ধে সোমবার দুপুরে রেজিস্ট্রার বরবার লিখিত অভিযোগ দেন ওই দুই ছাত্রী।

এ নিয়ে রোববার সন্ধ্যায় বিভাগের সভাপতির কাছে ভূক্তভোগী এক ছাত্রী অভিবাবকসহ অভিযোগ করেন বলে জানা যায়। অভিযুক্ত শিক্ষক জি এম আজমল আলী কাওসার বিভাগের সান্ধ্যকালীন (ইএমবিএ) কোর্সের দুই ছাত্রীকে বেশ কয়েকদিন ধরেই আপত্তিকর প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন।

এছাড়াও তিনি আপত্তিকর ছবি এক ছাত্রীর ফেইসবুক মেসেঞ্জারে পাঠাতেন।বিষয়টি নিয়ে বিভাগের সভাপতির কাছে মৌখিক অভিযোগের পরে সোমবার রেজিস্ট্রারের বরাবর ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেন ভূক্তভোগী দুই ছাত্রী।

অভিযুক্ত শিক্ষক জি এম আজমল আলী কাওসার এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি তো জানিনা তারা কি লিখিত দিয়েছে। আমাদের মধ্যে একটি ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে যা গতকাল বিভাগে আলোচনা করে সুরাহা করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে রেজিস্ট্রার (চলতি দায়িত্ব) ড. মোঃ আবু তাহের বলেন, ‘এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগে দুই ছাত্রী লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।’
অনুসন্ধানে জানা যায়, এর আগে অভিযুক্ত ওই শিক্ষককের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। শিক্ষা ছুটিতে থাকা অবস্থায় ওই শিক্ষক কর্মচারী নিয়োগ বোর্ডের সদস্য হিসেবে যোগদান করে ভাতা গ্রহন করেছেন।

এছাড়াও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চতর ডিগ্রীতে অধ্যয়নের জন্য কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছুটি নিলেও বিদেশে যান। এতে ওই বছরে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আর্থিক সুবিধা নেন।

কুমিল্লায় শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ ও স্মারকলিপি
এদিকে, কোটা সংস্কার দাবিতে আন্দোলনে ঢাকাসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন ও অন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা কুমিল্লা নগরীর পূবালী চত্ত্বরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। এছাড়া সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ জেলা শাখার সদস্যরা কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর ও পুলিশ সুপার মোঃ শাহ আবিদ হোসেনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

সোমবার ক্লাস বর্জনের পর দুপুরে কোটা ব্যবস্থাকে সংস্কার করে শতকরা ৫৬ ভাগ থেকে ১০ ভাগে নিয়ে আসা। কোটার যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্য থাকা পদ সমূহে মেধার নিয়োগসহ পাঁচ দফা দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা কুমিল্লা নগরীর পূবালী চত্ত্বরে অবস্থান নেয়। বিকাল ৫টায়ও দাবি আদায়ে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ কুমিল্লা জেলা শাখার সভাপতি মাজহারুল ইসলাম হানিফ জানান, দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে একাত্ততা পোষণ করে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সকল বিভাগের ক্লাস বর্জন করেছে। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে। এছাড়া দুপুরে এ বিষয়ে কুমিল্লার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫