ঢাকা, বুধবার,১৯ জুন ২০১৯

অপরাধ

টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়রসহ ২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা

০৮ মে ২০১৮,মঙ্গলবার, ২২:৫৪


প্রিন্ট
জামিলুর রহমান; আজাদ সিদ্দিকী

জামিলুর রহমান; আজাদ সিদ্দিকী

টাঙ্গাইলের বহুল আলোচিত ছাত্রলীগ নেতা আমিনুর রহমান খান বাপ্পি হত্যা মামলায় টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান মিরন ও কাদের সিদ্দিকী বীরোত্তমের ছোট ভাই আজাদ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া গত সোমবার এ আদেশ দেন।
টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম খান জানান, জামিলুর রহমান মিরন ও আজাদ সিদ্দিকী উভয়েই টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের এমপি আমানুর রহমান খান রানার বড় ভাই আমিনুর রহমান খান বাপ্পি হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি। দু’জনেই এ মামলায় জামিনে আছেন। সোমবার এই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের দিন গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে এমপি রানাকে আদালতে হাজির করা হয়। আদালতে তিনি সাক্ষ্য প্রদান করেন এবং আসামিপক্ষের আইনজীবীরা তাকে জেরা করেন। কিন্তু জামিলুর রহমান মিরন গতকাল আদালতে হাজিরা দাখিল করেও অনুপস্থিত ছিলেন। এ জন্য আদালতের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া তার জামিন বাতিল করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। এ ছাড়া আজাদ সিদ্দিকী গত কয়েকবার আদালতে অনুপস্থিত থাকায় তার বিরুদ্ধে আগেই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।
উল্লেখ্য, ২০০৩ সালের ২১ নভেম্বর সন্ধ্যায় বাপ্পিকে টাঙ্গাইল শহরের কলেজপাড়ার নিজ বাসার অদূরে দুর্বৃত্তরা গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করে। ওই সময় বাপ্পির সাথে থাকা আব্দুল মতিন নামে এক ব্যক্তিকেও একইভাবে হত্যা করা হয়। ঘটনার দুই দিন পর ২৩ নভেম্বর বাপ্পির বাবা আতাউর রহমান খান বাদি হয়ে টাঙ্গাইল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী বীরোত্তমের ছোট ভাই মুরাদ সিদ্দিকী ও আজাদ সিদ্দিকী, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান মিরন (ওই সময়েও তিনি টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র ছিলেন), জেলা বিএনপি নেতা আলী ইমাম তপনসহ ২০ জনকে আসামি করা হয়। মামলাটি পরে ডিবিতে স্থানান্তর করা হয়। সর্বশেষ সিআইডি কর্মকর্তা খোরশেদ আলম তদন্ত শেষে বিগত ২০০৭ সালের ১২ জুলাই ১৭ জন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। এ মামলায় মোট ৩৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ২৪ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫