ঢাকা, বুধবার,২২ মে ২০১৯

আমেরিকা

রাখে আল্লাহ, মারে কে?

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৯ মে ২০১৮,শনিবার, ১৪:৫০ | আপডেট: ১৯ মে ২০১৮,শনিবার, ১৫:১৪


প্রিন্ট
রাখে আল্লাহ, মারে কে?

রাখে আল্লাহ, মারে কে?

কিউবায় রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থার একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১০৭ জন নিহত হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় অলৌকিকভাবে চারজন যাত্রী বেঁচে গিয়েছিলেন। তবে তাদের মধ্যে একজন হাসপাতালে মারা গেছে। কিউবার কমিউনিষ্ট পার্টির মুখপাত্র গারনামা পত্রিকা এ খবর নিশ্চিত করেছে। বেঁচে থাকা তিনজন যাত্রী গুরুতর আহত বলে স্থানীয় গণমাধ্যম থেকে বলা হচ্ছে। বিমান দুর্ঘটনায় বেঁচে থাকা তিনজনই নারী। বিবিসি অনলাইন, রয়টার্স, ও আল-জাজিরা

১০৪ জন যাত্রী ও ছয়জন মেক্সিকান ক্রু নিয়ে কিউবার রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থার এ বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। মর্মান্তিক বিমান দুর্ঘটনায় দুই দিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে। বিমানটিতে ক্রুসহ মোট ১১০ জন যাত্রী ছিল।

বেঁচে যাওয়া যাত্রীদের কিভাবে উদ্ধার করা হয়েছে তা বিস্তারিত জানা যায় নি।

প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ কানেল বলেছেন, প্রায় ৪০ বছরের পুরানো বোয়িং ৭৩৭ বিমানের বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনার তদন্ত চলছে। শুক্রবার এটি বিধ্বস্ত হয়।
একটি মেক্সিকান কোম্পানির মাধ্যমে কিউবার জাতীয় বিমান সংস্থা কিউবানা ডি এভিয়াকন বিমানটি ভাড়ায় পরিচালনা করছিল।

এই দুর্ঘটনায় বিমানের ধ্বংসাবশেষ থেকে জীবিত তিন নারীকে উদ্ধার করা হয়েছে। জোস মারতি বিমান বন্দর থেকে উড্ডয়নের পরপরই এটি বিধ্বস্ত হয়।

বিমানটি অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে হাভানা থেকে পূর্বাঞ্চলীয় নগরী হোলগুইল যাচ্ছিল। বিমানের বেশির ভাগ যাত্রীই কিউবান। তবে দুর্ঘটনায় দুই আর্জেন্টাইন নাগরিক রয়েছে বলে সে দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশ্চিদ করেছেন। দুই আর্জেনটাইনসহ পাঁচজন বিদেশী যাত্রী দুর্ঘটনায় পতিত বিমানে ছিল।

বিমানটি ১৯৭৯ সালে তৈরি করা হয়। মেক্সিকান একটি ছোট কোম্পানি গ্লোবাল এয়ারের কাছ থেকে এটি ভাড়া নেয়া হয়েছিলো।

মেক্সিকো বলছে, বিমান দুর্ঘটনা তদন্তে সহায়তার জন্য তারা দুইজন সিভিল এভিয়েশন বিশেষজ্ঞকে পাঠিয়েছে। বিমানটির ছয়জন ক্রুর সবাই ছিলো মেক্সিকান।

 

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫