ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২৮ মে ২০২০

থেরাপি

কিছু প্রবাদবাক্যের ভুল

১৫ মার্চ ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

আমরা প্রতিনিয়তই বিভিন্ন প্রবাদবাক্য ব্যবহার করে থাকি। এসব প্রবাদবাক্যে অনেক ভুল রয়েছে। এবার এসব প্রবাদবাক্য ও তার ভুলগুলোর প্রমাণ দেখে নেয়া যাক। লিখেছেন সুদিপ্ত কুমার নাগ
প্রবাদবাক্য : দুষ্টু গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভালো।
ভুল প্রমাণ : এই প্রবাদবাক্যটি সম্পূর্ণ ভুল। এখানে বলা হয়েছে যে, দুষ্টু গরু থাকার চেয়ে গোয়ালঘর ফাঁকা রাখা ভালো। কিন্তু গোয়ালঘরে যদি গরুই না থাকে ও তাহলে কী বিক্রি করে টাকা কামাবেন? সুতরাং বলা উচিত শূন্য গোয়ালের চেয়ে দুষ্টু গরু ভালো। বিক্রি করলে টাকা পাওয়া যাবে।

প্রবাদবাক্য : একবার না পারিলে দেখ শতবার।
ভুল প্রমাণ : এই প্রবাদবাক্যে একবার না পারলে শতবার দেখতে বলা হয়েছে। কিন্তু শতবার দেখলে কি সব কাজ হয়? যেমন প্রেম। একবার ব্যর্থ হলে কি শত চেষ্টাতেও সফল হওয়া যায়? কাজেই সব ক্ষেত্রে এই প্রবাদ সঠিক না।

প্রবাদবাক্য : চোরে চোরে মাসতুতো ভাই।
ভুল প্রমাণ : পৃথিবীর সব চোরের মধ্যেই যে মাসতুতো ভাইয়ের সম্পর্ক থাকবে বা আছে, এর কোনো ভিত্তি নেই। কেউ উগান্ডায় চুরি করে আবার কেউ গুলিস্তানে চুরি করে। তার মানে এই উগান্ডার চোর আর গুলিস্তানের চোর যে সম্পর্কে মাসতুতো ভাই হবে, এর কোনো মানে নাই। চুরি করার দিক থেকে চোরদের বৈশিষ্ট্য এক। তাই বলা উচিতÑ ‘চোরে চোরে চুরিগত ভাই’।

প্রবাদবাক্য : অতি সন্ন্যাসীতে গাজন নষ্ট।
ভুল প্রমাণ : অতিরিক্ত সন্ন্যাসীর কারণে কখনোই গাজন নষ্ট হয় না। গাজন হলো হিন্দু দেবতা শিবের সঙ্গীত উৎসব। তাহলে অতিরিক্ত সন্ন্যাসীর কারণে শিব উৎসব কিভাবে ব্যর্থ হয়? সুতরাং এই প্রবাদবাক্যটি সম্পূর্ণ ভুল।

প্রবাদবাক্য : গাইতে গাইতে গায়েন।
ভুল প্রমাণ : গাইতে গাইতে যদি গায়েন হওয়া যেত তাহলে এতদিন যারা নিয়মিত বাথরুমে গান করেছ, তারা বিশ্বসেরা গায়ক হতে পারত। অতএব এই প্রবাদবাক্যটি ভুল।

প্রবাদবাক্য : অতিভক্তি চোরের লণ।
ভুল প্রমাণ : অতিভক্তি চোরের লণ হলে চাটুকাররা সফল হতে পারত না। সুতরাং এই প্রবাদবাক্যটিও ভুল।

প্রবাদবাক্য : যেখানে বাঘের ভয়, সেখানে সন্ধ্যা হয়।
ভুল প্রমাণ : যেখানে বাঘের ভয় হবে, ঠিক সেখানেই যে সন্ধ্যা হবে এর কোনো মানে আছে? সুন্দরবনে গেলে বাঘের ভয় থাকে। সেখানে দিনের বেলা গেলে সন্ধ্যা নামে? সুতরাং প্রবাদবাক্যটি ভুল।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫