লাল-সবুজে সাজ

ফাহমিদা জাবীন

স্বাধীনতা দিবস মানেই আমাদের লাল-সবুজ রঙের পতাকা। এই দিনে প্রিয় রঙের প্রাধান্য দেখা যায় আমাদের সাজ পোশাকেও। অনেকেই সকালে বা বিকেলে বের হন ঘুরে বেড়াতে। ছুটির দিন হওয়ায় নিজেকে সকাল থেকেই একটু প্রস্তুত করেন সারা দিনের জন্য। কী পোশাক পরবেন, কী ধরনের সাজ করবেন আর কী গয়না পরবেন এই বিষয়ে জানাচ্ছেন রূপবিশেষজ্ঞ শারমিন সেলিম তুলি।
যারা শাড়িতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। তারা তাঁতের শাড়ি টাঙ্গাইল বা জামদানি বেছে নিতে পারেন। সবুজ কিংবা লাল অথবা এই দুটো রঙের মিশ্রণে তৈরি শাড়ি এই দিবসের জন্য আদর্শ। যারা শাড়ি পরতে চান না তারা পরতে পারেন সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া জিন্স কিংবা লং স্কার্ট। সেই পোশাকগুলোয়ও থাকতে হবে লাল-সবুজের ছোঁয়া।
বাঙালি নারীর গয়না ছাড়া সাজ যেন অপূর্ণ। শাড়ির সাথে লাল-সবুজ হাতভরা রেশমি কাচের চুড়ি, তা না হলে আমাদের দেশীয় নান্দনিক কাপড়ের মাটি, ঝিনুক বা নানা ধরনের মেটালের গয়নায়ও আপনি হয়ে উঠবেন আকর্ষণীয়। যাতে থাকবে নান্দনিকতার ছোঁয়ার সাথে সাথে দেশীয় উপাদানের সংমিশ্রণ। এবার আসা যাক মেকআপের আর চুলের সাজসজ্জায়। তৈলাক্ত ত্বকের অধিকারীরা তুলার সাহায্যে টোনার লাগান। না হলে ওয়াটার বেইজড অয়েল ফ্রি ময়েশ্চারাইজার লোশন লাগান। এরপর ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর কনসিলার লাগাবেন। বিশেষ করে চেহারায় যেসব জায়গায় কালো ছোপ বা দাগ আছে। চোখের নিচে কালি থাকলে সেখানেও ভালোভাবে লাগাতে হবে। যতেœর সাথে কালো ছোপ, দাগ বা স্পটের ওপর আঙুল দিয়ে মিশিয়ে নিন। আপনার ত্বকের রঙের থেকে কনসিলারটি এক শেড গাঢ় হবে। গরমের কারণে লিকুইড ফাউন্ডেশন বাদ দিতে পারেন। ফেস পাউডার বা ডুয়েল ফিনিশড ফাউন্ডেশন লাগাবেন। ফাউন্ডেশনের রঙ হতে হবে ত্বকের সাথে মিলিয়ে। রাতের বেলায় ইচ্ছা করলে স্টিক ফাউন্ডেশন ব্যবহার না করে প্যান ব্যবহার করতে পারেন। এরপর লুজ পাউডার লাগিয়ে নিন। দিনের বেলায় রোদে বের হওয়ার আগে অবশ্যই সানস্ক্রিন লাগাবেন। ফাউন্ডেশন ভালোভাবে মুখে গলায় ব্লেন্ড হয়ে গেলে সিলভার অথবা গোল্ডেন শিমার দেয়া পাউডার ব্রাশের সাহায্যে পুরো মুখ ও গলায় লাগান। তবে খেয়াল রাখবেন বেশি শিমার যেন না লাগানো হয়। সবশেষে চিকবোনে ব্লাশন লাগিয়ে নিন। খেয়াল রাখবেন ব্লাশন যেন ভালোভাবে মিশে যায়। কপালের দুই পাশে এবং থুঁতনিতেও ব্লাশান বুলিয়ে নিন।
চোখের সাজে প্রথমেই আপনার চোখের আকার অনুযায়ী আইপেন্সিল দিয়ে চোখের আকার ঠিক করে নিন। চোখের বাইরে লাইনার টানলে চোখ বড় দেখায়। আইলাইনার লাগানোর পর ছোট ব্রাশ দিয়ে স্মাজ করে নিন। সাজে আকর্ষণ আসবে। আইশ্যাডো পোশাকের সাথে ম্যাচ করে পরে নিন। স্বাধীনতা দিবসের সাজে হালকা সবুজ, লাল, গোলাপি রঙ ব্যবহার করতে পারবেন। সবশেষে মাশকারা আপনার চোখকে আকর্ষণীয় করবে। লিপস্টিক লাল, কমলা, ব্রাউন, গোলাপি রঙের শেডেই দিনে অথবা রাতে আপনার সাজকে পরিপূর্ণতা দেবে। আর কপালে পরে নিতে পারেন লাল অথবা সবুজ টিপ। দিনের বেলা বা রাতে বাইরে বের হলে খোলা চুলে থাকতে পারেন। কিংবা গরমে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন এমন হেয়ার স্টাইলে লম্বা চুলে বেনি কিংবা খোঁপা করে লাল একটা গোলাপ খোঁপায় গুঁজে নিলে সাজে বাঙালি নারীর পরিপূর্ণতা আসবে। সালোয়ার-কামিজ বা অন্য পোশাকে পনিটেল, ফ্রেঞ্চ বেনি করা যেতে পারে। নানা রঙের হেয়ার কালার করেও খোলা চুলেও চমৎকার লাগবে এই দিনটিতে। সব শেষে সুগন্ধির ব্যবহার আপনাকে সতেজ ও ফুরফুরে রাখবে সারা দিন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.