পঁচিশ বছরের যুবক সাজিয়ে ধর্ষণ মামলায় বৃদ্ধকে জেলে পাঠাল পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর শ্যামপুর থানায় দায়ের করা একটি ধর্ষণ মামলায় ষাট বছরের এক বৃদ্ধকে পঁচিশ বছরের যুবক সাজিয়ে আসামি করা হয়েছে। এটাই শেষ নয়, কোনো তদন্ত ছাড়াই পুলিশ ওই মামলায় বৃদ্ধকে অসুস্থ অবস্থায় গ্রেফতার করে জেলে পাঠিয়েছে।
ভুক্তভোগী বৃদ্ধের নাম সাইফুল ইসলাম তরফদার। তিনি একজন ব্যবসায়ী। শ্যামপুর থানায় দায়ের করা ওই ধর্ষণ মামলায় পুলিশ তাকে গত ১৫ মার্চ গ্রেফতার করে। তিনি বর্তমানে জেলে আছেন।

ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, পুলিশ গত ১৫ মার্চ সাইফুল ইসলাম তরফদারকে গ্রেফতার করে শ্যামপুর থানায় নিয়ে যায়। পরে তারা জানতে পারেন তাকে একটি ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। ওই মামলা সম্পর্কে খোঁজ খবর নিয়ে তারা জানতে পারেন, জনৈক জুলি নামে এক নারী গতবছর ২৪ ডিসেম্বর শ্যামপুর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা (নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন) দায়ের করেন। ওই মামলায় মো: সাইফুর (২৫) ও মো: মামুন (২৬) নামে জনৈক দুইজনকে আসামি করা হয়েছে। এজাহারে মামলার আসামিদের নাম ছাড়া তাদের কোনো ঠিকানাও উল্লেখ নেই। এমনকি মামলার বাদিকেও তারা চেনেন না। অথচ ওই মামলায়ই ষাট বছরের সাইফুল তরফদারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মামলার বরাত দিয়ে ভুক্তভোগীর ছেলে শিবলি অভিযোগ করেন, জুলি নামে জনৈক নারী থানায় মামলা করেন ২৪ ডিসেম্বর। কিন্তু তার আগে ১২ ডিসেম্বর এক দুর্ঘটনায় ডান পায়ে গুরুতর আঘাত পান তার বাবা। প্রায় এক মাস তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এমনকি ওই মামলার আসামি হিসেবে তার বাবার নাম এবং বয়সের সাথেও কোনো মিল নেই।

এব্যাপারে ওই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই নুরুজ্জামানের বক্তব্য জানতে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বাদির শনাক্তমতে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার এজাহারে উল্লেখিত আসামির বয়স এবং গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির বয়স সম্পর্কে তিনি বলেন বয়সের বিষয়টি আদালত দেখবে। এটি তার দায়িত্ব নয় বলে জানান তিনি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.