ডিভাইস ব্যবহার করে নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতি

জালিয়াতচক্র আটক
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিসিএস, মেডিক্যাল ও বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং সরকারি ব্যাংকসহ সরকারি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় ডিভাইস ব্যবহার করে জালিয়াতি করছে একটি চক্র। তারা পরীক্ষা শুরুর ৫ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে ওই ডিভাইসের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র বাইরে ফাঁস করে দেয়। পরে বাইরে থাকা প্রশ্ন এক্সপার্টদের মাধ্যমে ডিভাইসের সাথে সংযুক্ত খুদে হেডফোনে পৌঁছে যায় এমসিকিউ বৃত্ত ভরাটের উত্তর। এ চক্রের মূল হোতা তিনজন বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক আবু জাফর মজুমদার রুবেল, পুলকেশ দাস ওরফে বাচ্চু ও কার্জন। তারা পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে গোয়েন্দারা।
গত শুক্রবার রাতে ব্যাংক কর্মকর্তা, ইঞ্জিনিয়ারসহ এই চক্রের ১০ জনকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। তারা হলেন সোনালী ব্যাংকের আইটি অফিসার অসীম কুমার দাস, পূবালী ব্যাংকের অফিসার মনিরুল ইসলাম ওরফে সুমন, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের অফিসার সোহেল আকন্দ, জহিরুল ইসলাম, সাদ্দাতুর রহমান ওরফে সোহান, নাদিমুল ইসলাম, এনামুল হক ওরফে শিশির, শেখ তারিকুজ্জামান, অর্ণব চক্রবর্তী ও আরিফুর রহমান ওরফে শাহিন।
এ সময় তাদের কাছ থেকে খুদে ব্যাটারি, ইয়ার ফোন, মোবাইল ফোনের মতো কথা বলার সিম সংযুক্ত মাস্টারকার্ড জব্দ করা হয়। রাজধানীর মিরপুর, নিউমার্কেট ও ফার্মগেট এলাকা থেকে ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করে ব্যাংক ও সরকারি চাকরি এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাসহ বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় জড়িত ছিল তারা।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.