ঢাকা, মঙ্গলবার,৩১ মার্চ ২০২০

উপমহাদেশ

স্বামীর পাসপোর্ট দিয়ে স্ত্রীর ৪২০০ মাইল বিমানভ্রমণ!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

০৩ মে ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ০৯:১৯


প্রিন্ট
এমিরেটস এয়ারলাইন্স বলছে তাদের কর্মীর ভুলের কারণেই এমনটা হয়েছে

এমিরেটস এয়ারলাইন্স বলছে তাদের কর্মীর ভুলের কারণেই এমনটা হয়েছে

এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ এখন তদন্ত করে দেখছে যে কিভাবে একজন নারী তার স্বামীর পাসপোর্ট দেখিয়ে চার হাজার দুশো মাইল পথ পাড়ি দিয়ে ম্যানচেস্টার থেকে দিল্লী চলে গেলো।

যদিও ওই নারীর আত্মীয়দের একজন বলছেন ভুলবশত স্বামীর পাসপোর্ট নিয়ে চলে গিয়েছিলেন তিনি।

ব্যবসায়িক কাজে তিনি দিল্লী যাচ্ছিলেন।

পরিবারের সদস্যরা বলছেন ইমিরেটস এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজে তিনি চেক ইন করার সময় বিষয়টি ধরা পড়েনি।

মূলত দিল্লীতে পৌঁছানোর পরই তিনি ভুলটি বুঝতে পারেন।

এয়ারলাইন্স ইতোমধ্যেই এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে বলেছে যে, এক্ষেত্রে তাদের স্বাভাবিক উচ্চমান অনুসরণ করা হয়নি।

গীতা মোধা নামে ওই যাত্রীর একজন আত্মীয় বলছেন, দিল্লী পৌঁছানোর পর ইমিগ্রেশন ফরম পূরণের সময় তিনি ভুলটি বুঝতে পারেন।

পরে তাকে ভারতে আর ঢুকতে দেয়নি ইমিগ্রেশন এবং পরের ফ্লাইটে তাকে দুবাইতে ফেরত পাঠানো হয়।

আবার দুবাইতে এসে তাকে প্রায় এক রাত বিমানবন্দরেই থাকতে হয়। পরে এয়ারলাইন্সের কাছে তার নিজের পাসপোর্ট যাওয়ার পর তাকে দিল্লী যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়।

তার আত্মীয়ের মতে, ‘এটি দুঃখজনক। তিনি খুবই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছিলেন। ভাবুন আপনি পথে রয়েছেন অথচ আপনার হাতে অন্যের পাসপোর্ট।’

তিনি বলেন, প্রথমে চেক ইনের সময় বিষয়টি ধরা পড়লে তার নিজের পাসপোর্ট আনিয়ে নেয়ার মতো অনেক সময় তার হাতে ছিলো।

কারণ নির্ধারিত সময়ের তিন ঘণ্টা আগে তিনি বিমানবন্দরে পৌঁছেছিলেন।

ম্যানচেস্টার বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ বলছে, এটি এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব ছিলো।

এয়ারলাইন্স বলছে, বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে তারা এখন এটি নিয়ে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সাথ একযোগে কাজ করছে।

সূত্র: বিবিসি

নিরাপত্তা ফাঁকি দিয়ে বিমানে উঠে গেল মেয়েটি
বিবিসি, ২ নভেম্বর ২০১৭
মা-বাবার কাছ থেকে পালিয়ে সাত বছরের একটি মেয়ে টিকেট ছাড়াই জেনেভা বিমানবন্দরে থেকে একটি বিমানে উঠে গিয়েছিল।

এক লিখিত বক্তব্যে জেনেভা এয়ারপোর্ট জানিয়েছে, রোববার মেয়েটি জেনেভার সেন্ট্রাল স্টেশনে তার মা-বাবার কাছ থেকে চোখ ফাঁকি দিয়ে একটি ট্রেনে চড়ে বিমানবন্দরে আসে।

মেয়েটি তার ‘ছোট আকৃতির সুবিধা নিয়ে’ নিরাপত্তা তল্লাশিকে ফাঁকি দিতে পেরেছে বলে মনে করছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

তারা এটিকে একটি ‘চরম অনুশোচনীয় ঘটনা’ বলছে।

সুইজারল্যান্ড-ফ্রান্স বর্ডারে অবস্থিত জেনেভা এয়ারপোর্টটি যাত্রীদের শুধুমাত্র ফ্রান্স বা সুইজারল্যান্ড ছাড়ার অনুমতি দেয়।

বিমানবন্দরের মুখপাত্র বারট্রান্ড স্টাম্পফ্লি বলেন, ফ্রান্সের বিমানে উঠার গেট দিয়ে শিশুটি ফ্লাইটে উঠে।

তিনি বলেন, প্রাথমিক নিরাপত্তা তল্লাশির সময় মেয়েটি সম্ভবত পূর্ণবয়স্কদের সাথেই দাঁড়িয়ে ছিল।

প্রস্থান গেটের কাছাকাছি আসলে এয়ারপোর্ট স্টাফ শিশুটিকে পেছনে পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু মেয়েটি পরে গোপনে বিমানে উঠতে সক্ষম হয়।

কর্মকর্তারা ধারনা করছেন, শিশুটি এমন একটি পথ দিয়ে বিমানে উঠে গেছে যে পথ দিয়ে সে আকৃতির একজন মানুষের পক্ষেই যাওয়া সম্ভব। এর চেয়ে বড় কিছু সেদিক দিয়ে যেতে পারবে না।

মেয়েটিকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। নিরাপত্তা ভিডিওর মাধ্যমে মেয়েটির অবস্থান সনাক্ত করে পুলিশ। পরে মেয়েটিকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়া হয়।

কর্মকর্তারা বলছেন, এ ঘটনার মাধ্যমে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার যে ত্রুটি রয়েছে সেটি প্রকাশ পেয়েছে। এমনটা যেন আর না হয় সেজন্য যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫