আপিল করলেন আওয়ামী লীগের প্রার্থীও

নিজস্ব প্রতিবেদক

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন (গাসিক) নির্বাচনের ওপরে হাইকোর্টের দেয়া স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে বিএনপির প্রার্থীর পর আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমও আবেদন করার কথা জানিয়েছেন ।

আজ সোমবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আবেদন করার কথা জানান। এর আগে দুপুরে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আবেদন করেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার।

জাহাঙ্গীর আলম বলেন, যেকোনো প্রক্রিয়ায় নির্বাচনটা যেন হয়। গাজীপুর সিটি উন্নয়নের স্বার্থে আমরা নির্বাচন চাই। আমরা গণতন্ত্র চর্চা করতে চাই। গাজীপুর সিটির নির্বাচনের স্বার্থে আমি সবার কাছে সহযোগিতা চাই। এজন্য আমি হাইকোর্টেও এসেছি।

এর আগে রোববার গাজীপুর সিটি নির্বাচন স্থগিতের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।
সিটি করপোরেশনে সাভারের শিমুলিয়া ইউনিয়নের ছয়টি মৌজাকে অন্তর্ভুক্ত করার বৈধতা নিয়ে করা একটি রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি জাফর আহমেদের হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।

রুলে গাজীপুর সিটি করপোরেশনে সাভারের শিমুলিয়া ইউনিয়নের ছয়টি মৌজাকে অন্তর্ভুক্ত করা বেআইনি হবে না- তা চার সপ্তাহের মধ্যে জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।
আদালতে রিট আবেদনটি করেন সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার শিমুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এ বি এম আজহারুল ইসলাম সুরুজ।


এর আগে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের (জিসিসি) নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিত করে দেয়া হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন বিএনপির প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার।

আজ সোমবার আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে এ আবেদন করা হয়েছে বলে জানান তার আইনজীবীরা। 

আজ আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর খাস কামরায় দেখা করেন বিএনপির মেয়র প্রার্থীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, ব্যারিস্টার একেএম এহসানুর রহমান ও অ্যাডভোকেট সগীর হোসেন লিয়ন।

পরে চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর খাস কামরায় হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করার অনুমতি পান বিএনপির প্রার্থী।

এর আগে রোববার গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিত করেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে সাভারের শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ছয়টি মৌজাকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভুক্ত করা গেজেট এবং গাজীপুর সিটি নির্বাচন সংক্রান্ত তফসিল কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সচিব, ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব (সিটি করপোরেশন-২), ঢাকা জেলা প্রশাসক, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ নয়জনকে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচার জাফর আহমদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট বি এম ইলিয়াস (কচি)। তাদের সঙ্গে ছিলেন মামলার ফাইলিং আইনজীবী অ্যাডভোকেট সৈয়দ মো: রেজাউর রহমান রেজা। অন্যদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো: মোখলেছুর রহমান।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.